Pakistan: স্বাধীনতার জন্য হস্তক্ষেপ চেয়ে নরেন্দ্র মোদির পোস্টার নিয়ে মিছিল সিন্ধিদের


1967 সালে জিএম সৈয়দ এবং পীর আলি মহম্মদ রশদির নেতৃত্বে সিন্ধিদের জন্য পৃথক দেশের দাবি উঠেছিল। পাকিস্তানের নিরাপত্তা সংস্থাগুলি অনেক সিন্ধি জাতীয়তাবাদী নেতা, কর্মী ও শিক্ষার্থীদের নিখোঁজ, নির্যাতন ও হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে । আর তা থেকেই মুক্তি পেতে সিন্ধিদের স্বাধীন হওয়ার সংগ্রামে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসার ও সমর্থন জানানোর জন্য প্ল্যাকার্ড নিয়ে মিছিলে হাঁটে তারা । 

রবিবার সেই রকম একটি মিছিলে দেখা গেল ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাষ্টপ্রধানদের ছবি। প্রকাশ্যে আসা মিছিলের ভিডিওতে বিক্ষোভকারীদের বিভিন্ন স্লোগানের ফাঁকে পাকিস্তানের হাত থেকে নিষ্কৃতি পাইয়ে দেওয়ার জন্য মোদি-সহ বাকি রাষ্ট্র নেতাদের কাছে আবেদন জানাতেও শোনা গিয়েছে।

প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে, রবিবার পাকিস্তানের সিন্ধুপ্রদেশের সান (Sann) এলাকায় স্বাধীনতার দাবিতে মিছিল বের করেছিলেন কয়েক হাজার মানুষ। তাঁদের দাবি, সিন্ধুপ্রদেশ হল সিন্ধু সভ্যতার ঘর। বৈদিক ধর্মের সূচনাও হয়েছিল এখান থেকে। কিন্তু, অবৈধভাবে এই জায়গা দখল করে রাজত্ব চালানোর পর বিট্রিশ সাম্রাজ্যবাদীরা ১৯৪৭ সালে তা পাকিস্তানের হাতে তুলে দেয়। তারপর থেকেই সিন্ধুপ্রদেশের প্রাচীন ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি নষ্ট করার চেষ্টা চালাচ্ছে ইসলামাবাদ। এর হাত থেকে নিষ্কৃতি পেতেই বেশ কিছুদিন ধরে স্বাধীনতার দাবিতে আন্দোলন করছেন সিন্ধুপ্রদেশের বেশিরভাগ বাসিন্দা। রবিবার সেই রকম একটি মিছিলেই দেখা গেল ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-সহ বিভিন্ন রাষ্ট্রপ্রধানের ছবি। বিক্ষোভকারীরা তাঁদের কাছে পাকিস্তানের হাত থেকে নিষ্কৃতি পাইয়ে দেওয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছেন।

সিন্ধিদের দাবি, সিন্ধু মূলত সিন্ধু সভ্যতা এবং বৈদিক ধর্মের প্রধান ভূমি, যা ব্রিটিশরা বেআইনিভাবে দখল করেছিল এবং 1947 সালে তা পাকিস্তানের দুষ্ট ইসলামপন্থীর হাতে তুলে দেওয়া হয়েছিল ।



 জাই সিন্ধু মুত্তাহিদা মহজ়ের চেয়ারম্যান শফি মহম্মদ বুরফাত বলেন, "এর ইতিহাস ও সংস্কৃতিতে বর্বর রূপ আচরণের মধ্যেও সিন্ধু একটি বহুত্ববাদী হিসাবে তার ঐতিহাহাসিক এবং সাংস্কৃতিক পরিচয় ধরে রেখেছে এবং বজায় রেখেছে । এখানে ভিন্ন ভাষা ও সংস্কৃতি, ভিন্ন ভাবনার মানুষ রয়েছে । এরা কেবল একে অপরকে প্রভাবিত করেনি, মানব সভ্যতার বার্তাকেও গ্রহণ করেছে ।" তিনি আরও বলেন, "পূর্ব ও পশ্চিমের ধর্ম, দর্শন এবং সভ্যতার এই সংমিশ্রণ আমাদের মাতৃভূমি সিন্ধুকে মানবতার ইতিহাসে একটি স্বতন্ত্র স্থান দিয়েছে । "

শফি মহম্মদ বুরফাত বলেন,"আমাদের জাতি সর্বজনীন শান্তি, ঐক্য ও মানব কল্যাণে বিশ্বাস করে । এবং আমাদের ভূমি হাজার হাজার বছর ধরে পৃথিবীতে একটি স্বাধীন জাতি হিসাবে পরিচিত । তবে আজ আমরা দাসে পরিণত হয়েছি । সিন্ধি জনগণ পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদী রাজ্যের দাস হয়ে থাকতে চায় না । তাই আমরা পাকিস্তানের ইসলামিক সন্ত্রাসবাদী রাষ্ট্রের থেকে স্বাধীন হওয়ার সংগ্রামে সমগ্র আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসার এবং আমাদের সমর্থন করার জন্য আবেদন করছি । "

Read More Story - Click Link

1967 সালে জিএম সৈয়দ এবং পীর আলি মহম্মদ রশদির নেতৃত্বে সিন্ধিদের জন্য পৃথক দেশের দাবি উঠেছিল। পাকিস্তানের নিরাপত্তা সংস্থাগুলি অনেক সিন্ধি জাতীয়তাবাদী নেতা, কর্মী ও শিক্ষার্থীদের নিখোঁজ, নির্যাতন ও হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে । আর তা থেকেই মুক্তি পেতে সিন্ধিদের স্বাধীন হওয়ার সংগ্রামে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসার ও সমর্থন জানানোর জন্য প্ল্যাকার্ড নিয়ে মিছিলে হাঁটে তারা । 


নিচে কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত অবশ্যই দিন এবং লেখাটি যত সম্ভব সাইটটি শেয়ার করুন। যাতে করে আপনার বন্ধুরাও জানতে পারে।

আপনি আমাদের এই পোর্টালে লিখতে পারেন আপনার মতামত, প্রবন্ধ বা আপনার এলাকার জনপ্রিয় খবর দিতে পারেন ।বা নতুন কোন ব্যবসা সংক্রান্ত আইডিয়া । ( খবর বা লেখা পাঠাবেন মেইল মাফরত এবং বাংলা ফন্টে টাইপ করে সঙ্গে  ২ টি ফোট পাঠাবেন। আপনার সম্পুর্ন ঠিকানা এবং ফোন নাম্বার দেবেন , আপনার নাম ঠিকানা আমরা আপনারা মতামত মতে গোপনে রাখবো। )


নবীনতর পূর্বতন