যৌন উত্তেজনার ওষুধ দিয়ে নাবালিকাকে ৮ বছর ধর্ষণ! মুম্বাইয়ে

যৌন উত্তেজনার ওষুধ দিয়ে নাবালিকাকে ৮ বছর ধর্ষণ! মুম্বাইয়ে 

১৬ বছরের একটি নাবালিকা মেয়েকে অপহরণ করে যৌন উত্তেজনার ওষুধ  ইঞ্জেকশন দিয়ে প্রতিদিন প্রায় আটবছর ধরে ধর্ষণ করার অভিযোগে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে মুম্বাই পুলিস। 


যৌন উত্তেজনার ওষুধ

শহরের আন্ধেরির ঘটনা বিভীষিকা সৃষ্টি করেছে বাণিজ্য নগরীতে। ১৬ বছরের একটি নাবালিকা মেয়েকেঅপহরণ করে যৌন উত্তেজনার ওষুধ  ইঞ্জেকশন দিয়ে প্রতিদিন প্রায় আটবছর ধরে ধর্ষণ করার অভিযোগে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে মুম্বাই পুলিস। 

মুম্বাইয়ের এক কলেজ পড়ুয়া যুবতী পুলিসের কাছে অভিযোগে জানায় যে তার পাশের এক প্রতিবেশি তাঁর সঙ্গে এই কাজ করেছে ৮ বছর ধরে। জোর করিয়ে তাঁর শরীরে যৌন উত্তেজনার ইঞ্জেকশন দেওয়া হত। অনেক সময় যৌন উত্তেজনার ট্যাবলেট হিসেবেও খাওয়ানো হত তাকে ৷ যুবতী জানায় যে অভিযুক্তের স্ত্রীও এই গোটা বিষয়টি সম্পর্কে জানতো। 

নিগৃহীত যুবতীর অভিযোগের ভিত্তিতে ওই দুজন স্বামী স্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়৷ যদিও তারা অভিযোগ অস্বীকার করেছে। এমনকী তদন্ত করতে নেমে এই ঘটনায় ওই যুবতীর  কাকা ও তার ছেলেকেও আটক করেছে পুলিশ। 

আম্বোলি থানায় ২৭ পৃষ্ঠার অভিযোগ জমা করেন ওই যুবতী । সেখানে লেখা ছিল যে ওই যৌন উত্তেজনার ইঞ্জেকশন দিয়ে প্রথমে তাঁর উপর যৌনাচার চলে। যা ভিডিও করে রাখা হয়েছিল। পরবর্তী বছরগুলিতে ওই ভিডিও দিয়ে ব্ল্যাকমেইলিং করে তাকে প্রতিদিন ধর্ষণ করা হত। 

এই ঘটনার পর থেকেই অবসাদে ভুগতে থাকে ওই যুবতী। জানা গিয়েছে এর আগে মেয়ের নামে পুলিসের কাছে অপহরণ কেসও দায়ের করেছিলেন যুবতীর  বাবা। দিল্লি ও উত্তরপ্রদেশে তল্লাশি চালিয়ে ওই যুবতীকে উদ্ধার করা হয় অনেক কষ্টে।
নবীনতর পূর্বতন